বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৭:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
গাইবান্ধায় যায়যায়দিনের বর্ষপূর্তি উদযাপন গাইবান্ধার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের বেহাল দশা গাইবান্ধায় ৩ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা, নেপথ্যে রহস্য কি? গাইবান্ধা সাব রেজিস্ট্রি অফিস দূর্নীতি ও জালিয়াতির আখড়ায় পরিণত! দেশের সার্বিক উন্নয়নে নদী ভাঙন রোধের বিকল্প নেই: পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী গাইবান্ধায় বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে হাত পাঁ পুড়ে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা গাইবান্ধায় জাতীয় দুগ্ধ দিবস পালিত গাইবান্ধায় লিচুর দাম চড়া দেখেই স্বাদ মেটাতে হচ্ছে গাইবান্ধায় পৃথক দুই মাদক মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে সাংবাদিকদের ১দিনের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা
নোটিশ :

জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ : সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে পত্রিকার জন্য গাইবান্ধা জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থান/এলাকায় প্রনিতিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবিসহ সরাসরি অথবা ডাকযোগে সম্পাদক বরাবর আবেদন করুন। প্রকাশক ও সম্পাদক, সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে , গোডাউন রোড, কাঠপট্টী, গাইবান্ধা। ফোন: : ০১৭১৫-৪৬৪৭৪৪, ০১৭১৩-৫৪৮৮৯৮

গাইবান্ধার চরাঞ্চলে যাত্রীসহ পণ্য পরিবহনে একমাত্র মাধ্যম ঘোড়ার গাড়ি

স্টাফ রিপোর্টার / ৪৪ Time View
Update : শুক্রবার, ২২ মার্চ, ২০২৪, ৩:৪৮ অপরাহ্ন

আমার ঘোড়ার গাড়িতে বৌ সাজিয়ে…….। এটি সিনেমার একটি পুরনো গান। এক সময় গ্রাম বাংলার পাড়া গাঁয়ে ঘোড়ার গাড়ির পাশাপাশি পালকির বেশ প্রচলন ছিল। সে সময়ে নুতন বৌকে ঘোড়ার গাড়ি কিংবা পালকিতে করে বাপের বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়ি আনা হতো। কিন্তু যুগের পরিবর্তনের ধারায় ধীরে ধীরে পালকি বিলুপ্ত হলেও এখন ঘোড়ার গাড়ি দখল করেছে চরাঞ্চল।

গাইবান্ধার চরাঞ্চলে এখন শুকনো মৌসুমে যাত্রীসহ পণ্য পরিবহনে একমাত্র মাধ্যম ঘোড়ার গাড়ি। তাই ঘোড়ার গাড়ির কদর বেড়েছে চরাঞ্চলের মানুষের কাছে। গাইবান্ধার মোট আয়তনের ২৫ ভাগেরও বেশী এলাকা তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা নদীর চরাঞ্চল। এসব প্রত্যন্ত চরাঞ্চলে রাস্তাঘাট না থাকায় নদীর হাটুপানি ও বালু চরে পণ্য পরিবহন, অসুস্থ রোগীকে বহন এবং যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে ঘোড়ার গাড়িকে।

চরের খানাখন্দ ভরা বালুময় রাস্তায় যেখানে ভ্যান, রিক্সা, ট্রলি, ট্রাক যেতে পারেনা সেই সকল রাস্তায় জনপ্রিয় বাহন হিসেবে কদর বেড়েছে ঘোড়ার গাড়ির। চরগুলোর সিংহভাগ জমিতে রবি শস্য উৎপাদিত হয়। পাট, আলু, বাদাম, ভুট্টা, গম, ডাল, পিঁয়াজ, মরিচ, শাকসব্জীসহ বিভিন্ন ধরনের উৎপাদিত ফসল কৃষকরা এখন ঘোড়ার গাড়িতে করে পরিবহন করে হাট-বাজারে বিক্রি করছেন। এসব ফসল এখন আর ফরিয়া ব্যবসায়ীদের কাছে কম মূল্যে বিক্রি করতে হয় না। চরাঞ্চলের কৃষকরা এক দিকে যেমন উৎপাদিত ফসল সহজেই হাটে-বাজারে পরিবহন করছেন অপর দিকে কৃষি উপকরণ সার-বীজসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামাল ক্রয় করে ঘোড়ার গাড়িতে করে সহজেই বহন করে নিয়ে যাচ্ছেন।

এ ছাড়াও যাত্রীসহ রোগী বহনেও ঘোড়ার গাড়ির কদর লক্ষ্যনীয়। এ সুযোগে ঘোড়ার গাড়ির মালিকরাও অর্থ উপার্জন করে সুন্দরভাবে জীবিকা নির্বাহ করছেন।

ঘোড়ার গাড়ি চালক আমজাদ হোসেন জানান, প্রতিদিন গাড়ি চালিয়ে প্রায় ৭/৮’শ টাকা উপার্জন করা যায়। ঘোড়ার পিছনে দৈনিক এক থেকে দেড়’শ টাকা খরচ হয়। বাকী টাকা তার দৈনিক আয়।

চালক সাইদুর রহমান জানান, বগুড়া, রাজশাহী, ঢাকাসহ বিভিন্ন শহরে শ্রমিকের কাজ করেও ঠিকভাবে সংসার চালানো সম্ভব হতো না। এখন এ গাড়ি চালিয়ে সংসারের খরচ বহন ছাড়াও আয় করতে পারছি। এখন শ্বশুর বাড়িসহ আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতেও যাই এই গাড়িতে। গাড়ি চালিয়ে দৈনিক যে আয় হয় তাতে আর কোন সমস্যা হয় না।

কৃষক আনারুল জানান, চর অঞ্চলে এখন অসংখ্য ঘোড়ার গাড়ি। ঘোড়ার গাড়িতে এখন যাত্রী পরিবহন ছাড়াও চরের উৎপাদিত ফসল বাজারজাত করতে সহজ হচ্ছে। এতে দামও ভালো পাওয়া যাচ্ছে। সব কিছু মিলে ঘোড়ার গাড়ি এখন চরাঞ্চলবাসীর পরিবহনের একমাত্র মাধ্যম।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর