মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:২১ অপরাহ্ন
নোটিশ :

জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ : সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে পত্রিকার জন্য গাইবান্ধা জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থান/এলাকায় প্রনিতিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবিসহ সরাসরি অথবা ডাকযোগে সম্পাদক বরাবর আবেদন করুন। প্রকাশক ও সম্পাদক, সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে , গোডাউন রোড, কাঠপট্টী, গাইবান্ধা। ফোন: : ০১৭১৫-৪৬৪৭৪৪, ০১৭১৩-৫৪৮৮৯৮

গাইবান্ধায় আগুনে পুড়লো বসতবাড়ি ও ১০ দোকান, অর্ধ কোটি টাকার ক্ষতি

স্টাফ রিপোর্টার / ১৮ Time View
Update : মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ৫:০৭ পূর্বাহ্ন

গাইবান্ধায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে একটি বসতবাড়িসহ ১০টি দোকান ভস্মীভূত হয়েছে। এতে প্রায় এক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও ব্যবসায়ীরা।

সোমবার রাত ১১টার দিকে সদর উপজেলার দাড়িয়াপুর হাটের তেতুলতলা মার্কেটে এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ১১ টার দিকে দাড়িয়াপুরের তেতুল তলায় অবস্থিত সুজন কুমারের সেবা ফার্মেসিতে আগুন লেগেছে জানতে পারেন। আগুন লাগার খবর শুনে আশেপাশের লোকজন ছুটে এসে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। সেইসাথে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট আগুন নেভানোর কাজ করে এবং দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় রাত ১২টা ৪৫ মিনিটে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসে। ততক্ষণে আগুনে ১০টি ঔষধের ফার্মেসি, গো-খাদ্যের দোকান, মেশিনারিজ দোকান এবং নয়ন কুমারের সাত রুম বিশিষ্ট একটি আধা পাকা বাড়ির ফ্রিজ, টিভি, মালামাল ও আসবাবপত্র পুড়ে যায়। এ ঘটনায় প্রায় এক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও ব্যবসায়ীরা। তবে, কিভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়, কেউ তা বলতে পারেনি। এসময় সব হারিয়ে নিঃস্ব ব্যবসায়ীদের কান্নায় পরিবেশ ভারি হয়ে ওঠে।

মঙ্গলবার রাতে আগুন লাগার বিষয়টি নিশ্চিত করেন গাইবান্ধা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ইনচার্জ আরিফ রেজা মিলু। তিনি বলেন, খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১১টার মধ্যেই আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে পেরেছি। সেখানে আগুন খুব দ্রুত ছড়িয়েছে। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হওয়ার সম্ভাবনা নেই। কারণ, বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট হলে মিটার পুড়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু আগুনে এতকিছু পুড়ে গেল অথচ প্রতিটি দোকানের মিটার ঠিক আছে। তাই তদন্ত সাপেক্ষে আগুনের কারণ জানা যাবে। ক্ষতিগ্রস্তদের বক্তব্য অনুযায়ী কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলা হলেও আমরা অর্ধেক ক্ষতি হিসেব করে ৫০ লাখ টাকার সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি নির্ধারণ করেছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর